শুধু অধিনায়কত্বটাই করতে চান সাকিব, কোচিং নয়

0
35

আরবান ডেস্কঃ টেস্টের অধিনায়ক বদলেছে, কিন্তু পারফরম্যান্সটা একই রয়েছে। বরারবরের মতো ব্যাটিং ভরাডুবিতে বাজে হার। পার্থক্য বলতে গেলে আগের অধিনায়ক সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে পারেননি, এবারের অধিনায়ক সেটি পেরেছেন। বলছি সাকিব আল হাসানের কথা।
অ্যান্টিগা টেস্ট শেষে স্পষ্ট বার্তা দিয়েছেন দলের ক্রিকেটারদের প্রতি। ব্যাটসম্যানদের যার যার ভুল নিজেদের শোধরাতে হবে কোচদের সঙ্গে নিয়ে। সাকিব চান না ব্যাটসম্যানদের রানে ফেরানোর দায়িত্বও তিনি কাঁধে নেন। তার কাজ দল পরিচালনা করা এবং সেটি তিনি করতে চান সামনে থেকে।
ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা নিয়ে রোববার সাকিব বলেন, ‘দেখুন এটাতো আমার আসলে খুব একটা আলোচনার বিষয় না, কোচেরই আলোচনার বিষয়। এখন আমি যদি কোচিংও করাই, অধিনায়কত্বও করি তাহলেতো সমস্যা।’
অ্যান্টিগা টেস্টের প্রথম দিন প্রথম সেশনে বাংলাদেশ হারিয়ে ফেলেছিল ৬ উইকেটে। ব্যাট হাতে সাকিব নিজে ফিফটি (৫১) করে কোনোমতে একশ পার করেন। দ্বিতীয় ইনিংসেও সেই একই সমস্যা। ওপেনিং জুটি ভালো শুরুর আভাস দিলেও সেটি ধরে রাখতে পারেননি। ১০৯ রানে হারিয়ে ফেলে ৬ উইকেট। তৃতীয় দিন প্রথম সেশনে আউট হন চার ব্যাটসম্যান। সবকিছু মিলিয়ে ব্যাটসম্যানদের ভরাডুবিতেই ৭ উইকেটে হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে বাংলাদেশকে।
সাকিব বার্তা দিয়েছেন যার যার কাজ তাদের নিজেদেরই করতে হবে। দায়িত্ব নিয়ে খেলতে হবে। ‘আমার মনে হয়, আমার যতটুকু কাজ ততটুকুতে থাকাই ভালো। আমার দায়িত্ব যতটুকু আছে, সেটা পালন করার চেষ্টা করবো। বাকি যাদের যে কাজটা আছে, সেটা করলেই সবার কাজটা সহজ হয়ে যায়।’
বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে ১০৩ রান করে অলআউট হয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২৬৫ রানের বেশি করতে দেননি বোলাররা। ১৬২ রানের লিড মাথায় নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে খেলতে নামে বাংলাদেশ। আবারও ব্যাটিং ভরাডুবি। সাকিব-সোহানের ফিফটিতে ইনিংস হার এড়িয়ে উলটো লক্ষ্য দেয়। সেটিও মাত্র ৮৪। ফল চতুর্থ দিন সকালেই ৭ উইকেটে হার।
সাকিব বলেন, ‘আরেকটু ভালো করতে পারতাম। যেটা হয়ে গেছে আসলে প্রথম সেশনের পর থেকে প্রথম দিন আমরা সব সময় খেলার পেছনে ছিলাম। সব সময় আমাদের রিকভারি প্রসেসটাই ছিল। কখনো আমরা সামনে যেতে পারিনি। ওটাই একটা আফসোসের জায়গা।’
ব্যাটসম্যানদের তুলোনায় বোলাররা দারুণ করেছেন। প্রথম ইনিংসে মেহেদি হাসান মিরাজ ৪ উইকেট নিয়েছেন। দ্বিতীয় ইনিংসে খালেদ নিজের প্রথম ২ ওভারে ৩ উইকেট নেন। বোলারদের সাফল্যে খুশি অধিনায়ক সাকিব।
‘আমি খুবই খুশি যেভাবে বোলাররা বোলিং করেছে। ব্যাটিংটা অবশ্যই এটা আমরা সবাই জানি বার বার বলার কিছু নেই যে জায়গাটাতে আমাদের উন্নতির অনেক ইয়ে আছে, ক্যাচিংটা আরও ভালো হলে অবশ্য ভাল হবে। সব মিলিয়ে আমি খুশি পুরো ম্যাচটি নিয়ে, এর থেকে খুব বেশি যে আশা ছিল তা বলব না। যেটা আমি মনে করি যে আমাদের এই যোগ্যতা ছিল যে এখানে ভালো কিছু করার, যে একটা সুযোগ আমরা মিস করলাম’-আরও যোগ করেন সাকিব।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here