মোহনগঞ্জে শিশু ও গো-খাদ্য বিতরণ

0
46

সাইফুল আরিফ জুয়েল, মোহনগঞ্জ, (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি : নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে বন্যা দুর্গতের খাদ্য সামগ্রী বিতরণের পাশাপাশি শিশুদের খাদ্য ও গো-খাদ্য বিতরণ করা হচ্ছে। এসব কাজে প্রশাসনকে সহযোগীতায় কাজ করছে সেনাবাহিনী।
বৃহস্পতিবার বিকেলে বিতরণ শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ছাব্বির আহম্মেদ আকুঞ্জি এ তথ্য জানিয়েছেন। এদিন উপজেলার ৪০০ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়। পাশাপাশি শিশুদের জন্য দুধ চিনি ও গবাদি পশুর খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

এছাড়া বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থাসহ ব্যক্তি উদ্যোগে অনেকেই বন্যা দুর্গতের খাবার দিয়ে সহায়তা করছেন। প্রতিদিন তারা আশ্রয় কেন্দ্রে গিয়ে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছেন।
উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বন্যা কবলিত হয়ে মোহনগঞ্জে ৬০টি আশ্রয় কেন্দ্রে সাড়ে পাঁচ হাজার দুর্গত লোকজন এসে উঠেছে। তাদেরকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়মতি খাদ্য সামগ্রী, খাবার স্যালাইন, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট ও নগদ টাকা সহ বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় উপকরণ দেওয়া হচ্ছে। দুদিন থেকে শিশুদের জন্য গুড়া দুধ ও চিনি সহ তাদের প্রয়োজনীয় খাবারও দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া যাদের গবাদি পশু আছে তাদের গবাদি পশুর জন্য খৈল, ভূষিসহ নানা উপকরণের ১৫ কেজির একটি করে প্যাকেট দেওয়া হচ্ছে।
ইউএনও ছাব্বির আহম্মেদ আকুঞ্জি জানান, বর্তমানে পানি কমতে শুরু করেছে। এখনো কেউ আশ্রয় কেন্দ্র ছেড়ে নিজ বাড়িতে ফিরেছেন এমন তথ্য পাইনি। তবে এভাবে পানি কমতে থাকলে কয়েক দিনের মধ্যে হয়তো তারা বাড়ি ফিরতে শুরু করবেন। প্রতিটি আশ্রয় কেন্দ্রে প্রশাসানের পক্ষ থেকে নিয়মিত খাদ্য ও নিত্য প্রয়োজনীয় নানা সামগ্রী দেওয়া হচ্ছে। আজও গজধার ও আশপাশের রিমোট এলাকায় প্রায় ৪০০ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে। বিতরণে সেনাবাহিনী সহায়তা করছে। তাদের পক্ষ থেকেও খাদ্য সামগ্রী দুর্গতদের জন্য দিয়েছে। পাশাপাশি ইউনিয়ন চেয়ারম্যানরা ও খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ দিচ্ছেন বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের। তাদের সেই বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, বিভিন্ন সংস্থা বন্যার্তদের খাবার সামগ্রী দিচ্ছেন।
তিনি জানান, দুদিন থেকে আশ্রয়ে থাকা শিশু ও তাদের গবাদি পশুর জন্য খাবার দেওয়া হচ্ছে। বাড়িতে পানি উঠেছে কিন্তু আশ্রয় কেন্দ্রে আসেননি এমন লোকজনকেও ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হবে।
ইউএনও ছাব্বির আহম্মেদ আকুঞ্জি আরও জানান, দূরবর্তী স্থান যেখানে যাতায়াতের অসুবিধা সেখানেও নিয়মিত ত্রাণ দেওয়া হচ্ছে। স্বেচ্ছাসেবীদেরও বলেছি ওইসব জায়গায় যেন তারাও গিয়ে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here