Home রাজনীতি প্রধানমন্ত্রীর কাছে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর খোলা চিঠি

প্রধানমন্ত্রীর কাছে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর খোলা চিঠি

আরবান ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে খোলা চিঠি পাঠিয়েছেন গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। আজ সোমবার দুপুরে গণস্বস্থ্যের অফিস সহকারী বাচ্চু মিয়া প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ চিঠি পৌঁছে দেন।
প্রিয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে একজন নাগরিকের খোলা চিঠি শিরোনামের এ চিঠিতে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী লেখেন, অতীতে আপনার সাথে সাক্ষাতের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে এই খোলা চিঠি লিখছি। আশা করি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের কেউ না কেউ আমার এই খোলা চিঠি আপনার নজরে আনবেন এবং আমি একটি প্রাপ্তি স্বীকার পত্র পাব। প্রিয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে এটাই একজন নাগরিকের আকাঙ্খা।
চিঠিতে দেশে চলমান করোনা পরিস্থিতি প্রসঙ্গে বলা হয়, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হোক অথবা কোভিডমুক্ত বা অন্য কোনো রোগে আক্রান্ত রোগী, হাসপাতালে ভর্তির সিদ্ধান্ত দেন উক্ত হাসপাতালের পরিচালক, ডিউটিরত চিকিৎসক, নার্স বা ইমার্জেন্সি মেডিক্যাল অফিসার। কিন্তু বাংলাদেশে কোভিড-১৯ রোগী হাসপাতালে ভর্তি হতে পারবে কিনা, তার সিদ্ধান্ত দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, রোগী বা চিকিৎসক নন। কেন্দ্রীকতার এরূপ নিদর্শন পৃথিবীর অন্য কোথাও নেই। কেন্দ্রীকতা দুর্নীতির সহজ বাহন।
চিঠিতে আরও বলা হয়, বাংলাদেশের অধিকাংশ বেসরকারি হাসপাতালেরই স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুমোদন নেই, এমনকি গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের, গণস্বাস্থ্য ডায়ালাইসিস সেন্টারেরও অনুমোদন নেই। আলাদা আলাদা তদবির মানে আলাদা তদবির ব্যয়, আলাদা দরাদরি। হাসপাতাল, ল্যাবরেটরি এবং রোগ নির্ণয় কেন্দ্র অনুমোদনের জন্য বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এমন নিয়মাবলী করেছে, যা পূরণ করা প্রায় অসম্ভব। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় স্থির করে দেয় কয়টি পায়খানা-প্রস্রাব খানা থাকবে, কয়জন ডিপ্লোমা নার্স থাকতে হবে। কেবল হাসপাতালের অনুমোদন থাকলে চলবে না, হাসপাতালের প্রত্যেক বিভাগের জন্য আলাদা আলাদা অনুমোদন থাকতে হবে।
এ প্রসঙ্গেই প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে জাফরুল্লাহ বলেন, অনুগ্রহ করে সরকারি চাঁদা কত বেড়েছে তা লক্ষ্য করুন। হয়রানি ও দুর্নীতি একত্রে চলাফেরা করে।চিঠিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আগামী মাসে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের করোনা ওয়ার্ড উদ্বোধনের আহ্বান জানিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ আরো বলেন, আগামী মাসে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের (আইসিইউ) সুবিধা নিয়ে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ও কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সুবিধাসমেত করোনা সাধারণ ওয়ার্ড চালু করবে ধানমন্ডিস্থ গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। এখানে সর্বসাকুল্যে রোগীর দৈনিক খরচ পড়বে অনধিক ৩ হাজার টাকা। আপনি কি এই অত্যাধুনিক শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ও কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহের সুবিধাসমেত জেনারেল ওয়ার্ডের উদ্বোধন করবেন?

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- বিজ্ঞাপন-

জনপ্রিয় সংবাদ

এবার হচ্ছে না জেএসসি পরীক্ষা

আরবান ডেস্ক : মহামারী করোনা পরিস্থিতির কারণে চলতি বছর জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা হচ্ছে না। একই সঙ্গে বাতিল করা হচ্ছে মাদ্রাসা...

আজ শুভ জন্মাষ্টমী

আরবান ডেস্ক : আজ শুভ জন্মাষ্টমী। সনাতন ধর্মের অবতার ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিন। হিন্দুদের বিশ্বাস, সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার জন্য ভগবান শ্রীকৃষ্ণ দ্বাপর...

বাংলাদেশ নেপালের সঙ্গে রেল ট্রানজিটে যুক্ত হচ্ছে

আরবান ডেস্ক : এবার নেপালের সঙ্গে ট্রানজিট চুক্তিতে রেল রুট যুক্ত করতে সম্মত হয়েছে বাংলাদেশ। দুই দেশের এই বাণিজ্যিক রেল যোগাযোগ হবে...

গাড়ির ভেতর থেকে শিশুর মরদেহ উদ্ধার, বাবা মা গ্রেপ্তার

আরবান ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের অ্যালাবামা অঙ্গরাজ্যের ৩ বছর এক সন্তানকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার বাবা মায়ের বিরুদ্ধে। স্থানীয় সময় রোববার বিকালে হট...

মতামত

Print Friendly, PDF & Email