পূর্বধলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দেয়া হচ্ছে মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ

0
60

পূর্বধলা উপজেলা প্রতিনিধি : নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলা ৫০ শয্যা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এর বিরুদ্ধে মিজানুর রহমানকে (৪৬) মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ সেবন করতে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ বৃহস্পতিবার (০৪ আগষ্ট) সকালে পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঁচ টাকা দিয়ে টিকেট করে বহুলী গ্রামের মিজানুর রহমান (৪৬) চিকিৎসার সেবা নিতে গেলে তাকে মে-২০২২ সালের মেয়াদ উত্তীর্ণ পভিসেফ ঔষধ প্রদান করা হয়। পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ প্রদানের ঘটনায় উপজেলাবাসী সংসয় প্রকাশ করছেন। চিকিৎসা সেবা গ্রহণকারী মিজানুর রহমানকে বলেন, আমার দাঁতের ব্যথার চিকিৎসার জন্য পূর্বধলা হাসপাতালের বহির্বিভাগে টিকিট করে ডাক্তারের কাছে গেলে ডাক্তার আমাকে দেখে ঔষধ লিখে দেয়। আমি সেই সিলিপ ফার্মাসিস্ট হারবাল এসিস্ট্যান্ট মোঃ শাহজাদা ও স্টোর কিপার আবুল কালাম এর কাছে দিলে আমাকে ঔষধ দিয়েছেন। ঔষুধগুলো নিয়ে আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে এসে দেখি হাসপাতালের ঔষুধগুলোর মেয়াদ উত্তীর্ন হয়েছে মে-২০২২ সালে। তিনি আরও বলেন, চার মাসের মেয়াদ উত্তীর্ন ঔষুধগুলো যদি আমি না দেখে ব্যাবহার করতাম তাহলে আল্লাহ না করুক আমার অনেক বড় ক্ষতি হতে পারত। পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর কতৃপক্ষকে মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ প্রদান কারায় শাস্তির আওতায় আনা দরকার বলে মনে করেন তিনি। উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান তালুকদার আজাদ বলেন, গত জুন মাসের ১৭ তারিখ তিনি তার ছেলেকে পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাতলা পায়খানা ও বমি হওয়ায় তার ছেলের ডিহাইড্রেশন সমস্যা হয়। জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে ভর্তি হওয়ার১ ঘন্টা ১০ মিনিট পর ডাক্তার আসেন, চিকিৎসা শুরু হয় ১ ঘন্টা ৪০ মিনিট পর, ডিউটিরত নার্সদের অবহেলা, ওয়ার্ড বয় আজহারুলের সহযোগিতায় চিকিৎসা শুরু, ডিউটিরত নার্স ঘুমাবে বলে দশম শ্রেণীর মূল্যায়ন পরীক্ষার্থী রাতের স্যালাইন খুলে দেয়, শুক্রবারে দুই মাস বয়সী শিশু বাচ্চা হাসপাতালে ভর্তি থাকা অবস্থায় চেম্বারে নিয়ে টাকার বিনিময়ে রোগী দেখা, স্টোক করা ৮০বছর বয়সী বৃদ্ধা রবিবার সকাল ১০ টায় ভর্তি হয় সোমবার সকাল ১১ টা পর্যন্ত ডাক্তার আসেনি। আরো অনেক অভিযোগর ভিডিও তার মোবাইলবন্দী হয়ে আছে বলে জানান। এইভাবে ভুল সেবা প্রদান করলে সাধারণ লোকজন পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ওপর আস্থা হারিয়ে ফেলবে। সেই সাথে ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর কারণ হতে পারে বলেও মনে করেন তিনি। যদি এই ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হয় তাহলে আন্দোলন সহ প্রয়োজনে মামলা দায়ের করা হবে বলে জানান তিনি। পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু হাসান শাহীন বলেন, বিষয়টি জেনেছি অতিদ্রুত তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে ঘটনাটি তদন্ত পূর্বক আগামী চার কার্যদিবস এর মধ্যে রিপোর্ট প্রকাশ করা হবে। স্টোরগুলো পরিদর্শন করে দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মচারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। নেত্রকোনা জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোঃ সেলিম মিয়া বলেন, বিষয়টি আমার জানা ছিলো না, মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ প্রদান এর বিষয়ে জানতে পারি এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে বিষয়টি তদন্ত করে দেখতে বলছি।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here