পূর্বধলা-নেত্রকোনা সড়ক উন্নয়ন কাজে অনিয়মের অভিযোগ, কাজ শেষ না হতেই ধসে যাচ্ছে নদীতে

0
143

মো: জায়েজুল ইসলাম : নেত্রকোনা-পূর্বধলা সড়ক উন্নয়ন কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয়দের অভিযোগ দুর্বল তদারকি ও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের কারণে নির্মান কাজ শেষ না হতেই এই সড়কের নারায়ণডহর অংশে নদীতে ধসে পড়ছে। তাছাড়া কাজের ধীরগতির কারণে এ সড়কে চলাচলকারীদের দুর্ভোগ কমছেনা। তবে কর্তৃপক্ষের দাবী কাজে নিম্বমানের সামগ্রী ব্যবহারের কোনো সুযোগ নেই।
নেত্রকোনারম জেলা সদরের সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র সড়কটি এক যুগেরও বেশি সময় ধরে চলাচলে অনুপযোগী ছিল। এতে পূর্বধলা ও সীমান্তবর্তী দুর্গাপুর উপজেলার লাখ লাখ মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। দীর্ঘ ভোগান্তির পর ২০১৯ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর এই সড়ক উন্নয়নের কার্যাদেশ দেয় সড়ক ও জনপদ বিভাগ। নেত্রকোনা থেকে পূর্বধলা পর্যন্ত ১৫কি: মি: সড়ক উন্নয়নে নির্মাণ ব্যয় বরাদ্ধ ধরা হয় ৪৮কোটি ২৩লক্ষ টাকা। রানা বিল্ডার্স নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এই সড়ক উন্নয়নের কাজ পায়। ২০২২সালের ৩০জুন কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। রাস্তার উভয় পাশে ৩ফুট বাড়িয়ে ১৮ফুটে উন্নীতকরে রাস্তার উন্নয়নের কাজ চলমান আছে। এই রাস্তার নারায়নডহর বাজার সংলগ্ন ধলাই নদীর ভাঙ্গন থেকে রাস্তা সু-রক্ষার জন্য ব্লক বসানোর কাজ করা হয়। কিন্ত সম্প্রতি ব্লকগুলির বিরাট একটা অংশ উপর থেকে ধসে গিয়ে নদীতে মিশে যাচ্ছে। এতে ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়ে রাস্তা হুমকির মাঝে পড়ে। কাজ শেষ হতে না হতেই নির্মিত ব্লক ধসে যাওয়ায় এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। তারা বলছেন কর্তৃপক্ষের দূর্বল তদারকি ও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় রাস্তা নির্মানের আগেই ধসে যাচ্ছে। তারা জানান ব্লক বসানোর সময় মাটি ঠিকমত না বসানোর কারণে এমনটি হয়েছে। এই রাস্তায় পূর্বধলা থানা রোড হয়ে পূর্বধলা বাজার পর্যন্ত অংশের কাজ থেমে আছে দীর্ঘদিন ধরে। কাজের প্রথমদিকে এই অংশে পিচ ঢালাইয়ের উদ্দেশ্যে কাজ শুরু করলে উপজেলার সদরের কয়েকটি সামাজিক সংগঠন আরসিসি ঢালাইয়ের দাবীতে মানববন্ধন করে। তারপর বাজারের ভিতর দুই পাশে ৩ফুট গর্ত করে সুরকি বালু দিয়ে রাস্তা ১৮ফুট প্রসস্থ করে ফেলে রাখা হয়। এতে রাস্তার পাশে ড্রেন এই বর্ধিত অংশে পড়ায় তা বন্ধ হয়ে যায়। ফলে বাজারের পানি চলাচলের রাস্তা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগে পড়ে পূর্বধলা বাজারবাসী। রাস্তার পাশে স্থাপনা সরিয়ে ড্রেন নির্মাণ ও পথচারী চলাচলের রাস্তা রাখার কোনো কার্যকরী উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না। এতে ভবিষ্যতে যানজটসহ দুর্ভোগের আশংখা থাকায় পূর্বধলা বাজারবাসীর মাঝে অসন্তোষ বিরাজ করছে।
পূর্বধলা বাজার ব্যবসায়ী আব্দুল মোমেন জুয়েল, স্বপন চন্দ্র সরকার বলেন, রাস্তার পাশে পানি চলাচলের ড্রেনের ব্যবস্থা ও পথচারী চলাচলের ব্যবস্থা না রাখলে ভবিষ্যতে এই রাস্তায় যানযটসহ নানা দুর্ভোগ দেখা দিবে।
নেত্রকোনা সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. হামিদুল ইসলাম বলেন, এই সড়কের ইতিমধ্যে ৫০ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই কাজ শেষ হবে বলে তিনি দাবী করেন। কাজে দূর্বল তদারকি ও নিন্মমানের সামগ্রী ব্যবহারের কথা অস্বীকার করে তিনি বলেন, নিন্মমানের সামগ্রী ব্যবহারের কোনো সুযোগ নেই। অফিসের জনবলের সীমাবদ্ধতা থাকলেও এ কাজে যথাযথ তদারকি করা হচ্ছে। ধেবে যাওয়ার ব্লকের বিষয়ে তিনি বলেন, এই অংশে নদীর বাঁক ও গভীরতা বেশি থাকায় এমনটা হয়েছে। তবে ধেবে যাওয়া অংশ পুনরায় মেরামত করে দেয়া হবে। পূর্বধলা উপজেলা সদরের স্থাপনা সরানো ও ড্রেন নির্মানের বিষয়ে বলেন, স্থাপনা সরানোর বিষয়টি আমাদের আওতাধীন নয়। রাস্তার পাশে অতিরিক্ত জায়গা থাকলে ড্রেন নির্মাণ করা হবে। আর পূর্বধলায় বাজার অংশে আরসিসি ডালাইয়ের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন আছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here