পূর্বধলায় শতভাগ বয়স্ক ও বিধবা ভাতার অনলাইন আবেদন কার্যক্রম বাস্তবায়নে উপজেলা চেয়ারম্যানের ব্যাপক প্রচার

0
294

মো: জায়েজুল ইসলাম : নেত্রকোনার পূর্বধলায় আজ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে উপজেলায় শতভাগ অসচ্ছল বয়স্ক ও বিধবা ভাতার অনলাইন আবেদন কার্যক্রম। গত বুধবার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত উপজেলা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে কুলসুমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম সুজন। উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার মো: মহিবুল্লাহ হক এর সঞ্চালনায় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শেখ রাজু আহমেদ রাজ্জাক সরকার, পূর্বধলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সৈয়দ আরিফুজ্জামান মাসুম, সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, সচিব ও উদ্যোক্তাবৃন্দ। সভায় জানানো হয় ২০২১-২০২২ অর্থ বছরে পূর্বধলা উপজেলাকে শতভাগ বয়স্ক ও বিধবা ভাতার অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এই কার্যক্রম নির্ভূল ও সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নের জন্য সভায় বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হয়।

সরকারের এ মহতি উদ্যোগকে সফলভাবে বাস্তবায়নের লক্ষে উপজেলা চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম সুজন ব্যাপক প্রচারসহ নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহন করেছেন। এ লক্ষে প্রকৃত উপকারভোগীরা যাতে কোন রকম হয়রানির শিকার বা দালালের খপ্পরে পড়ে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সে জন্য তিনি ব্যাপক প্রচারনা চালানোর ব্যবস্থা নিয়েছেন। তারই অংশ হিসেবে ১১টি ইউনিয়নে প্রতিদিন মাইকিং, ব্যানার, স্টিকার ও ফেষ্টুন এর মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারনা চালানো হচ্ছে। প্রচারনায় যোগ্য আবেদনকারীকে কোন দালালের শরনাপন্ন না হয়ে ভোটার আইডি কার্ড, ছবি ও মোবাইল নাম্বার নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে নিযুক্ত উদ্যোক্তার মাধ্যমে ৫০টাকার বিনিময়ে অনলাইনে আবেদন করার জন্য আহবান জানানো হয়।
উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার মো: মহিবুল্লাহ হক জানান, আবেদন নির্ভুল ও ত্রুটিমুক্ত রাখতে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের উদ্যোক্তাদের মাধ্যমে আবেদন গ্রহনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে সঠিক তথ্য পুরণ সাপেক্ষে একজন আবেদনকারী অনলাইনের মাধ্যমে যে কোন জায়গা থেকেও আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।
উপজেলা চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম সুজন নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলাকে শতভাগ অসচ্ছল বয়স্ক ও বিধবা ভাতার অন্তর্ভুক্ত করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। সরকারের এ মহতি উদ্যোগকে বাস্তবায়ন করতে কোন কুচক্রীমহল ফায়দা নিয়ে যাতে প্রশ্নবিদ্ধ করতে না পারে সে জন্য তিনি নিজ উদ্যোগে প্রতিটি ইউনিয়নে ব্যাপক প্রচারের ব্যবস্থা করেছেন। এছাড়া তিনি একেবারে অক্ষম ব্যক্তিদের নিজ খরচে সিম কার্ড ক্রয় অনলাইন আবেদন ফি ও ছবি তোলার খরচ বহন করবেন বলে জানান।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here