নেত্রকোনা পৃথক পৃথক অগ্নিকান্ডে একটি বাসা ও ৫ দোকান পুড়ে ছাই

0
93

এ কে এম আব্দুল্লাহ্, বিশেষ প্রতিনিধি : নেত্রকোনায় পৃথক পৃথক অগ্নিকান্ডে একটি বাসা ও ৪টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।
স্থানীয় এলাকাবাসী ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, জেলা শহরের কেন্দ্র স্থল আখড়ার সামনে অজহর রোড় এলাকার আলাউদ্দিনের বাসায় বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়। স্থানীয় লোকজন তাৎক্ষনিক ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় লোকজন প্রায় এক ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। ততক্ষণে আলাউদ্দিনের বাসা ও সামনের দোকান ঘর সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের অভিযোগ, আগুন লাগার সাথে সাথে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলেও প্রায় আধা ঘন্টা পর ঘটনাস্থলে পৌঁছে। এতে তাদের বাসাটি সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।
নেত্রকোনা ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক শেখ মোহাম্মদ মাহবুবুল ইসলাম জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়েছে।
অপরদিকে বৃহস্পতিবার ভোর রাত পাঁচটার দিকে নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার মোজাফ্ফরপুর ইউনিয়নের গগ্ডা নতুন বাজারের শহীদ মিয়া মার্কেটে অগ্নিকান্ডে চারটি দোকান পুড়ে গেছে।
স্থানীয় লোকজন জানায়, বৃহস্পতিবার ভোর রাতে শহীদ মিয়া মার্কেটের হৃদয় মিয়ার ব্যাটারি ও ইঞ্জিনের যন্ত্রাংশের দোকানে আগুনের শিখা জ্বলতে দেখা যায়। মুহূর্তের মধ্যে তা চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে কেন্দুয়া ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় দেড়ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। অগ্নিকান্ডে ততক্ষণে চারটি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। পুড়ে যাওয়া দোকান মালিকরা হলেন, ব্যাটারি ও ইঞ্জিনের যন্ত্রাংশ ব্যবসায়ী হৃদয় মিয়া, গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসায়ী মোস্তাক আহমেদ, চা দোকানী ইছহাক মিয়া ও কীটনাশক ব্যবসায়ী আবুল কাশেম খান। ক্ষতিগ্রস্থরা জানায়, আগুনে তাদের প্রায় ২৫ লাখ টাকা ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে।
কেন্দুয়া ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম জানান, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে এ অগ্নিকা-ের সূত্রপাত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here