দেশকে এগিয়ে নিতে যার যার অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে : বিভাগীয় কমিশনার ময়মনসিংহ

0
40

সাব্বির আহমেদ খান, কেন্দুয়া (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি : ময়মনসিংহ বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ শফিকুর রেজা বিশ্বাস বলেছেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অনেক রক্ত ও আত্মত্যগের বিনিময়ে অর্জিত এই বাংলাদেশ। এই দেশকে সকলে মিলে এগিয়ে নিতে হবে। তিনি বলেন, এজন্য দরকার সকলের দেশপ্রেম। একটি সুন্দর ও বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন নিয়ে আমরা কাজ করছি। এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। এই এগিয়ে চলাকে আরো গতিশীল করতে সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে যার যার অবস্থান থেকে এগিয়ে যেতে হবে। সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠিকে এগিয়ে নিতে শিক্ষাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে। বিভাগীয় কমিশনার আরো বলেন, কারিগরি শিক্ষা দেশে বেকারত্বের অভিশাপ কামাবে। তবে এ জন্য পরিবর্তন ঘটাতে হবে মন মানসিকতার। যারা কারিগরি শিক্ষা গ্রহন করবেন, তদের কেউ বেকার থেকে বসে বসে খেতে হবে না। অফিস, আদালত, সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ছাড়াও সকল মানুষকে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী হতে হবে। অপরাধ প্রবনতা ও মামলা মোকদ্দমা কমিয়ে আনতে গ্রাম আদালতের কার্যক্রমকে জোরদার করার জন্য ইউপি চেয়ারম্যানদের তাগিদ দেন তিনি। মনে রাখতে হবে, আমরা সবাই এই দেশের নাগরিক। সবাই মিলে আন্তরিক ভাবে দেশের কাজ করলে ২০৪১ সালে বাংলাদেশ হবে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ। কেন্দুয়া উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সুধিজনের সঙ্গে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বুধবার সকালে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। ইউএনও মাহমুদা বেগমের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন নেত্রকোণা জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, নেত্রকোণা জেলার সবচেয়ে বড় সমস্যা যোগাযোগ ব্যবস্থা। এ জেলায় যোগাযোগ ব্যবস্থার তেমন কোন উন্নয়ন অগ্রগতি হয়নি। তিনি যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য সহযোগিতা চান। সম্প্রতি বন্যায় ৩০৫ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। এছাড়া ১ লাখ ২০ হাজার লোককে বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে নেয়া হয়েছিল। তাদের যথাযত সম্মান ও খাদ্য দিয়ে সহায়তা করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ লোকদের জন্য বরাদ্দকৃত সরকারি সাহায্যের বিষয়ে উল্লেখ করে বলেন, যারা এই বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তারাই যেন সহযোগিতা পায়। কোন ধনি ব্যক্তি যাতে সহযোগিতা না পায়। এ মতবিনিময় সভায় কেন্দুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নূরুল ইসলাম প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়নে সহকারি ও শিক্ষা কর্মকর্তার সংকট জরুরী ভাবে দূর করার দাবি জানান। তিনি বলেন, ৭টি ক্লাস্টারের মধ্যে আছেন মাত্র ৩ জন সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা। কেন্দুয়ায় ৪ জন শিক্ষা কর্মকর্তা ও ১ জন শিক্ষা কর্মকর্তার শূন্যপদ জরুরী ভাবে পূরণ করার জন্য বিভাগীয় কমিশনারের দৃষ্টি আকর্ষন করেন। মতবিনিময় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, কেন্দুয়া পৌরসভার মেয়র মোঃ আসাদুল হক ভূঞা, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা একেএম শাহজাহান কবির, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজহারুল আলম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সাইফুল আলম, প্রাথমিক সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আজিজুল ইসলাম। সভার শুরুতেই বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের সম্মানে মানপত্র পাঠ করেন কেন্দুয়া উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা। এসময় অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ করেন কেন্দুয়া রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারন সম্পাদক মোঃ লাইমুন হোসেন ভূঞা। পরে তিনি কেন্দুয়া পৌরসভা, কেন্দুয়া জয়হরি স্প্রাই সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, উপজেলা ভূমি অফিস পরিদর্শন করেন এবং কেন্দুয়া প্রেসক্লাবে গিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। বেলা ৩টায় তিনি উপজেলার বলাইশিমুল গ্রামের পাশে আশ্রয়ন প্রকল্প ও মাঠের চিত্র স্বচোখে দেখতে যান তিনি। মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ মোফাজ্জল হোসেন ভূঞা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা বেগম সুমি, কেন্দুয়া সার্কেলের এএসপি জুনাঈদ আফ্রাদ, ওসি মোঃ আলি হোসেন পিপিএম সহ বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যান, বীর মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, সাংবাদিক ও বিভাগীয় কর্মকর্তা এবং সুশিল সমাজের লোজজন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here