এ বছর রাজধলা বিলপাড়ে দর্শনার্থীদের ভিড়, দর্শনার্থীদের বিভিন্ন অভাব-অভিযোগ

0
126

মোস্তাক আহমেদ খান: করোনার সংক্রমণের মধ্যেও এ বছর রাজধলা বিলপাড় ভ্রমণে ছিল দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়। দীর্ঘদিনের লকডাউন, প্রশাসনের কড়া নজরদাড়িতে ঘরের মধ্যে বন্দি হয়ে থাকার পর ঈদুল ফিতরে যেন বাঁধ ভাঙা উল্লাসে মেতে উঠেছে রাজধলা বিলপাড় প্রেমীরা। ঈদের দিন সকাল থেকেই মানুষজন ভ্রমণে মেতেছেন। তবে দূরত্ব ও স্বাস্থ‌্যবিধি মেনে চলছেন না অনেকেই। বেশির ভাগ মানুষকেই মাস্ক পরতে দেখা যায়নি।

ঈদের দিন সকাল থেকে শুরু করে প্রতিদিনই বাড়ছে রাজধলা বিলপাড় মানুষের আনাগোনা। রাজধলা বিলপাড়ের সৌন্দর্য উপভোগ করতে দূর-দূরান্ত থেকেও ছুটে এসেছেন দর্শনার্থীরা। পূর্বধলা উপজেলার প্রতিটি এলাকা থেকে রাজধলা বিলপাড় পয়েন্টে প্রতিদিনই শত শত দর্শনার্থীরা ভিড় করছেন।
এবছর রাজধলা বিলপাড় দর্শনে যেন নতুনমাত্রা যোগ হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ‌্যমে মনোমুগ্ধকর ছবি দেখে প্রতিদিনই হাজার হাজার মানুষ ভিড় করছে রাজধলা বিল পাড়ে। আর দর্শনার্থীদের ভিড় সামলাতেও হিমশিম পোহাতে হচ্ছে স্থানীয় প্রশাসনকে। রাজধলা বিলপাড়ে বেড়াতে আসা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক আরিফ খান জানান, রাজধলা বিলপাড়ে বেড়াতে আসা লোকজনের জন্য বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে মোটরসাইকেল ও এলোমেলো গাড়ীর পার্কিং। বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানোর ফলে ধুলাবালি, কাঁদা-মাটি ছিটানো এমনকি বিভিন্ন সময়ে দূর্ঘটনায় কবলিত হতে দেখা যায়। আর বিভিন্ন ময়লা আবর্জনা, চিপস এর খালি প্যাকেট, বিভিন্ন পানীয়ের প্লাষ্টিকের বোতল যেখানে সেখানে যত্রতত্র ভাবে ফেলানোর ফলে পরিবেশে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। পর্যাপ্ত পরিমানে বসার ব্যবস্থা না থাকায় দর্শনার্থীদের অনেক সময় বিশ্রাম নিতে কষ্ট হচ্ছে। এগুলোর প্রতি জনপ্রতিনিধি ও প্রসাশন একটু নজর দিলেই ঐতিহাসিক রাজধলা বিল হতে পারে দর্শনার্থীদের জন্য একটি সৌন্দর্য উপভোগের গুরুত্বপূর্ণ স্থান।

গৌরীপুর থেকে ঐতিহ্যবাহী রাজধলা বিল দেখতে আসেন সুমন আহমেদ। তিনি জানান, রাজধলা বিলপাড়ের বিভিন্ন জায়গার ছবি দেখেছি সামাজিক যোগাযোগ মাধ‌্যমে। তাই বন্ধু বান্ধব মিলে রাজধলা বিলপাড়ে ঘুরতে আসা। কিন্তু খারাপ লাগছে বেশির ভাগ লোকজনই স্বাস্থ‌্যবিধি মানছেন না। বেড়ানোর পাশাপাশি অন্তত সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। রাজধলা বিলের মধ্যে যদি দর্শনার্থীদের জন্য নৌকার ব্যবস্থা করা যায় তাহলে আরো ভাল লাগতো। এ ব‌্যাপারে স্থানীয় প্রশাসন ব‌্যবস্থা নিলে দর্শনার্থীরা রাজধলা বিলপাড়ের সৌন্দর্য‌্য উপভোগ করতে স্বাচ্ছন্দ‌্যবোধ করবে। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম সুজন জানান, করোনা সংক্রমণ রোধে দর্শনার্থীদের সমাগম সীমিত করা হয়েছে। এমনকি স্বাস্থ‌্যবিধি মেনে ভ্রমণ করার বিষয়টিও নজরে আনা হয়েছে। রাজধলা বিলপাড়ে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আগ্রহ সৃষ্টি করতে পর্যটকদের নিরাপত্তা ও বিভিন্ন সিন্ডিকেট বন্ধ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here