এলপি গ্যাসের দাম কমলেও পূর্বধলায় বিক্রি হচ্ছে আগের দামে

0
359

মো: জায়েজুল ইসলাম : ভোক্তা পর্যায়ে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলপিজি) দাম এক ধাপেই ৬৪ টাকা কমানো হয়েছে। বেসরকারি পর্যায়ের ১২ কেজি সিলিন্ডারের এলপিজি ভ্যাটসহ আগের মূল্য ছিল ৯০৬ টাকা। যা বর্তমানে ৬৪টাকা কমিয়ে সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৮৪২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত ১ জুন থেকে নতুন নির্ধারিত এ মূল্য কার্যকর হচ্ছে। গত সোমবার বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে দাম কমানোর এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে। (সূত্র: যাযাদি)।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় গত ১২ এপ্রিল দেশে প্রথমবারের মতো এলপিজির দাম নির্ধারণ করেছিল সংস্থাটি। সে সময় বলা হয়েছিল, বিশ্ববাজারের সঙ্গে মিল রেখে প্রতি মাসে দাম সমন্বয় করা হবে। ঘোষণা অনুযায়ী গত ২৯ এপ্রিল প্রথম দফা দাম সমন্বয় করা হয়। তবে বেসরকারি পর্যায়ে দাম কমলেও রাষ্ট্রায়ত্ত কোম্পানির এলপিজির দাম অপরিবর্তিতই থাকছে। উৎপাদন পর্যায়ে ব্যয় পরিবর্তন না হওয়ায় সরকারি খাতের সাড়ে ১২ কেজি এলপিজির দাম ৫৯১ টাকাই থাকছে। গাড়িতে ব্যবহৃত এলপিজির দাম কমিয়ে প্রতি লিটার ৪১ টাকা ৭৪ পয়সা নির্ধারন করা হয়েছে। যা আগে ছিল ৪৪ টাকা ৭০ পয়সা। সংবাদ সম্মেলনে বিইআরসির চেয়ারম্যান মো. আবদুল জলিল জানান, সৌদি সিপি, ডলারের বিপরীতে টাকার বিনিময় হার ও ব্যাংকিং হারে পরিবর্তন বিবেচনা করে দাম সমন্বয় করা হয়েছে। দাম কার্যকর প্রসঙ্গে তিনি জানান, কেউ নির্ধারিত দামের কমে বিক্রি করতে পারে। কিন্তু বেশি দামে বিক্রি করা যাবে না। কমিশন ঘোষিত মূল্যহার বাস্তবায়নে স্থানীয় প্রশাসন যাতে ভূমিকা রাখতে পারে, সে জন্য বাণিজ্য সচিব ও জ্বালানি সচিবকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।
সরকারি নির্দেশনায় এলপি গ্যাসের দাম কমানো হলেও নেত্রকোনার পূর্বধলায় বিক্রি হচ্ছে আগের দামেই। নির্ধারিত মূল্যের অনেক বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে ১২ কেজির এক বোতল এলপি গ্যাস। পূর্বধলা ও আশে পাশের বাজারগুলিতে খবর নিয়ে দেখে গেছে বসুন্ধরা, যমুনা, নাভানা, নাফস ইউনিগ্যাস ১২ কেজির এক বোতল এলপি গ্যাস বিক্রি হচ্ছে ৯৫০ টাকা থেকে ১ হাজার টাকা করে। সরকার নির্ধারিত মূল্যের সাথে সংগতি না রেখে বেশি দামে গ্যাস বিক্রি করায় ভোক্তা পর্যায়ে গ্রাহকদের মাঝে অসন্তোষ বিরাজ করছে। তাদের অভিযোগ মাঠ পর্যায়ে প্রশাসনের নজরদারির অভাবে বিক্রেতারা এর সুযোগ নিচ্ছে।
পূর্বধলা সদর বাজারে বিভিন্ন কোম্পানীর গ্যাস বিক্রেতা চৌধুরী স্টোরের প্রতিনিধি অভিজিত রায় চৌধুরী জানান, তারা ১২কেজির এক বোতল গ্যাস বর্তমানে ৯৫০ থেকে তার উপরে বিক্রি করছেন। তিনি আরও জানান, কোম্পানী থেকে বেশি দামে কিনে আনতে হয় বিধায় আমাদেরও বেশি দামে বিক্রি করতে হয়।
পূর্বধলায় বসুন্ধরা গ্রুপের বসুন্ধরা এলপি গ্যাসের পরিবেশক হাবিব ট্রেডার্সের সত্বাধিকারী মো: বাবুল মিয়া জানান, সরকার ১২কেজি এলপি গ্যাসের দাম ৬৪ টাকা কমিয়ে সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৮৪২ টাকা করলেও তার চেয়ে বেশি দামে কোম্পানী থেকে আমাদের কিনে আনতে হয়। তাই মাঠ পর্যাায়ে সরকার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে বিক্রি করতে হয়।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here